আমি এবং আমার খালাতো বোন
ঈদের দিন বিকাল
বেলা আমি এবং আমার বোন
দাদা বাড়ি থেকে নানির
বাড়িতে চলে আসি। নানির
বাড়িতে এসে দেখি আমার বড়
খালা এবং ছোট খালা আর আমার ২
মামা চলে আসছে ।
আমি মনে মনে বিশাল
খুশি হয়ে উথলাম কারন আমার
cousinদের সাথে আমার relation টা ছিল
খুবই ভালো। তাই আমি চিন্তা করলাম
যে এই বার আমার ঈদ কাটবে খুবই
আনন্দে কারন আম্মু আর আব্বু তখনও
দাদা বাড়ি ।
মুল ঘটনাতে যাই—->
নানির বাড়িতে এসে আমরা সব
cousinরা বসছি ক্যারাম খেলতে ।
তো আমার cousinরা আমার খুব ভক্ত
specially খালাতো বোন অনন্যা আর
মামাতো বোন দৃষ্টি , এরা just আমার
জন্য পাগল কারন কি আমি এখন ও
জানি না……
তো কাহিনি হল ক্যারাম
খেলতে গিয়া আমি খুব ভাল
খেলতে পারি না তো আমার বোন
আমাকে টিটকারি দিতেছে যে কিছু
পারি না আবার খেলতেছি ।
তো আমার খুব রাগ লাগতেছে ,
আমি রাগ করে খেলা বাদ
দিয়া উথে গেলাম । আমার
পিছে পিছে অনন্যা ও
উঠে চলে আসলো ।
আমি ছাদে গিয়া দাড়িয়ে দাড়িয়ে আকাশ
দেখতে ছিলাম(বলে রাখি আমার
নানির বাড়ি দোতালা) রাতের
আকাশ অনেক তারা উঠছে । হটাত
পিছনে শব্দ
শুনে ঘুরে দেখি অনন্যা দাড়িয়ে আছে।
আমি জিজ্ঞাসা করলাম
>কি ব্যাপার “অনি” ( আদর করে familyর
সবাই অনন্যাকে অনি ডাকত) তুই
এখানে!?
অনি বলল,
>> না এমনিতে !
আচ্ছা ভাইয়া তোমার কি কোন gf
আছে?
>আমি বললাম , না রে ! আমার মত
হনুমান কে কি কেও
ভালবাসতে পারে !
>>ও বলল, তুমি হনুমান না…
তুমি দেখতে অনেক cute!
>আমি বললাম , তুই তোর চোখের
ডাক্তার দেখা!
>> ও বলল, আচ্ছা আমাকে তোমার
ক্যামন লাগে?
>আমি বললাম , কেমন আর লাগবে! তুই খুব
সুন্দর তাই সুন্দরী লাগে।!!
>>ও বলল, i love you.
আমি তোমাকে সারা বাঁচব না।
>আমি বললাম ,কি যা তা বলতেছিস…
আমরা cousin আমাদের মাঝে relation হয়
না!
>>ও বলল ,হয় আমি তোমাকে আমার
সমস্ত হৃদয় দিয়ে ভালোবাসি please
আমাকে accept কর তোমার জীবন
সঙ্গিনী হিসেবে!
>আমি তো পুরা shocked
বলে কি মেয়ে …।পাগল নাকি?!
>>ও তখন মাথা নিচু
করে কান্না করতেসে
>আমি অর থুতনি তে হাত দিয়ে একটু উচু
করে বললাম, আমিও
তোমাকে ভালোবাসি! i love you!
>>ও just
দৌড়িয়ে এসে আমাকে জড়িয়ে ধরে কান্না করতে লাগল।
মাথাটা এক্তু উঁচু করলে আমি ওর
থুতনিতে ধরে ওকে একটা leap kiss
করলাম! আমার লাইফে first !
আমি ওকে kiss করা অবস্থাতে ওর
গেঞ্জি পরা দুধ গুলা তে হাত
দিয়ে আস্তে একটা টিপ দিলাম আর ও
ব্যাথা তে একটু শব্দ করে উঠল! আমি ওর
গেঞ্জির ভেতরে হাত
ঢুকিয়ে দিলাম !
আস্তে আস্তে ওকে পেছন
দিকে ধাক্কা দিয়ে নিয়ে দেওয়ালের
নিয়ে পিঠ ঠেকিয়ে ওর
গেঞ্জি খুলে ফেললাম! ওর ১৫+
বয়সে দুধ গুলা খুব বেশি উঁচু হয় নি কিন্তু
ওর দুধের nipple গুলা ছিল
গোলাপি (ছাদে light ছিল)।
আমি ছাদের light off করে আবার
ওকে kiss করে ওর ব্রা টা টান
দিয়ে খুললে ফেললাম!
ওর ঠোটের বদলে আমি এখন ওর nipple এর
চারপাশে চুষতে লাগলাম আর অন্য
হাতটা আস্তে আস্তে ওর নিচের pant
এর বোতাম আর chine টা খুলে ফেললাম!
ও ক্রমাগত চিল্লাছে , উফ! আহ! please
আর না। আমি আর পারতেছি না। please
আমাকে শেষ করে ফেল!আমি আর সহ্য
করতে পারতে ছি না please.
টান দিয়ে ওর প্যান্ট
খুলে নিছে নামিয়ে দিলাম!
আমি ওর panty তে হাত দিয়ে shock
খাইলাম। পুরা ভিজে চপচপ করতেছে।
আমি ওর
প্যান্টি টা নামিয়ে দিয়ে ওর
যোনি তে আঙ্গুল ঢুকিয়ে দিলাম ও
আরও জোরে চিৎকার করে উঠল! আর এই
দিকে আমার অবস্থা তো tight। আমার
নুনু
বাবাজি পুরা ফুলে ফেপে দাড়িয়ে আছে!
আমি আমার প্যান্ট খুলে আমার নুনু
বাবাজি কে বের করলাম । >>ও just
একবার আমার নুনু টার
দিকে চেয়ে বলল, please ওইটা ঢুকিও
না । আমি মারা যাবো! আমার pussy
ছিঁড়ে যাবে এত বড় টা ঢুকালে।!!
>আমি বললাম, কিচ্ছু হবে না! তুমি just
আমাকে জড়িয়ে ধরে রাখো!
আমি আস্তে আস্তে আমার নুনু টা ওর
যোনি তে ঢুকাতে গেলাম …কিন্তু
আমার ৬.৯ inch নুনু টা ওর
যোনি তে ঢুকতে ছিল না! ও প্রচণ্ড
ব্যাথাতে চিৎকার করে উঠল আমি ওর
মুখে হাত দিয়ে চাপ দিয়ে শব্দ
আঁটকে দিলাম! আমার নুনুটা থুতু
দিয়ে ভিজিয়ে নিয়ে আবার try
করলাম !
এবার ঢুঁকে গেল
আস্তে আস্তে আমি feel করলাম অনেক
গরম একটা গর্তে আমার নুনুটা প্রবেশ
করল আর এই দিকে ওর virginity নষ্ট
হওয়াতে কিছু blood বের হয়ে আসলো!
হটাৎ অনুভব করলাম ও অজ্ঞান
হয়ে গেছে!
আমি তাড়াতাড়ি ছাদের পানির
কল ছেঁড়ে ওর চোখে মুখে পানির
সিটা দিলাম । আমি প্যান্ট
পরে ফেলছি ভয় এর চোটে যে হায়
আল্লাহ আমি মনে হয়
ওরে মেরে ফেলছি! তখনও চোখ
খুলে আমার দিকে তাকাইল!
আমি ধরে ধরে উঠিয়ে ওরে বসিয়ে দিলাম!
ও উঠে আমাকে kiss করে বলল thank you ।
আমার জীবনের first এক্সপেরিন্স
আমি তোমার সাথে করলাম।
আমি তখন বললাম আমরা কিন্তু ফুল
কাজটা করতে পারি নি ও বলল
আজকে আর না। আমি আজকে আর পারব
না। এই দিকে আমি আর ওই
নিচে নেমে দেখি আমার
মামাতো বোন
দৃষ্টি আমাকে খুজতেছে। আমাকে আর
অনন্যাকে এক সাথে নামতে দেখে ও
জিজ্ঞাসা করল কই গেসিলাম
আমরা ? আমি just বললাম
এইতো ছাদে গেসিলাম ও
আমাকে ডাকতে আসছিল!
ও আমার হাত
ধরে নিচে খেতে নিয়ে গেল।
খেয়েদেয়ে উপরে(দোতালাটে)
আসলাম শুইয়া পরতে । হটাৎ রাত ২ টা-
আড়াইটার দিকে আমার ঘুম
ভেঙ্গে গেল দেখি অনন্যা আমার
প্যান্টের উপর দিয়ে আমার নুনু
হাতাইতেছে আমার নুনু মিয়া আবার
খাড়া হয়ে গেছে!
আমি অনি (অনন্যা) রে নিয়ে bathroom
এ গিয়ে দরজা আঁটকে দিলাম।
আস্তে আস্তে এবার ওর জামা কাপড়
সব খুলে আমার নুনু পানি দিয়ে একটু
ভিজিয়ে ওর
যোনি টে আস্তে আস্তে চাপ
দিয়ে ঢুকিয়ে দিলাম! ও দাতে দাঁত
চেপে চিৎকার করা বন্ধ করল! থেন খুব
আস্তে আস্তে ৫-৬ মিনিট sex করার পর
এ আমার নুনু তে হটাৎ ওর যোনি tight
করে চেপে ধরল অনন্যা বলে উঠল” i am
coming” ওর যোনির চাপে আমার নুনু ও
semen (বীর্য বা মাল) ফেলতে ready
হয়ে গেল!
আর কিচ্ছুক্ষণের মধ্যেই
অনন্যা আমাকে জড়িয়ে ধরে কাঁপা শুরু
করল আমি just টের পেলাম গরম পানির
মত কিছু একটা আমার নুনু তে এসে লাগল
সাথে সাথে আমার নুনু ও টার semen
বা বীর্য ছেঁড়ে দিল
আমি তাড়াতাড়ি আমার নুনুটা টান
দিয়ে ওর যোনি থেকে বের
করে ফেললাম! তাড়াতাড়ি বের
করতে গিয়ে ওর গায়ে কিছু বীর্য
ছিটকে গিয়ে পড়ল। কিছু ওর দুধ এ পড়ল ও
just একটু আঙ্গুল লাগিয়ে মুখে দিল …
মুখে দিয়ে বলল
ছিঃ কি বাজে taste !
তারপর দুই জন গোসল
করে গিয়ে শুয়ে পরলাম পরের দিন
সকাল বেলা ওদের
সাথে ঢাকা তে চলে আসলাম!
তারপর আর দেখা হয় নি ওর
সাথে কুরবানির
ঈদে নানি বাড়ি যাই নি তাই ওর
সাথে দেখা হয় নি………